১৯ বছর বয়সী ফাবিহার ব্লগার হওয়ার গল্প | প্রথম ইন্টারভিউ

স্বাগতম SoforAli.Com এ। আমি আমাদের গ্রুপে একটা পোস্টে বলেছিলাম যে, একজন মেয়ে ব্লগারের ইন্টারভিউ নিবো এবং সেটা পাবলিশ করব খুবই দ্রুত, কিন্তু ২ দিন দেরি হয়ে গেলো এই জন্য আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। কারণ যার ইন্টারভিউ আজকে পাবলিশ করব, উনি একটু ফ্যামিলির সাথে ভ্যাকেশনে ছিলেন।

এই ইন্টারভিউ এ আমি উনাকে সম্পুর্ন তুমি তুমি করে সম্বোধন করে ইন্টারভিউ নিব, কারণ উনি আমার পুর্ব পরিচিত ছোটবোন।

 

সফরঃ কেমন আছো ফাবিহা?

ফাবিহাঃ আলহামদুলিল্লাহ্‌, ভালো ভাইয়া আপনি কেমন আছেন?

 

সফরঃ আলহামদুলিল্লাহ্‌, তো কি করছো আজ কাল? কেমন যাচ্ছে দিন কাল?

ফাবিহাঃ এইতো, টুকটাক লেখালেখি আর বেশিরভাগ সময় আম্মুর সাথেই কাটাচ্ছি। নিজের ব্লগে নিজেই থাকি দিনের ২০% সময়। নানা ব্যাপার অডিট করি, খুত খুজে বেড়াই। এই আর কি।

 

সফরঃ বাহ বেশ তো, তো আজকে আমরা তোমার ব্লগার হওয়ার গল্প শোনব। এখন আমাদেরকে বলো তুমি ব্লগিং এর হাতেখড়ি কীভাবে হলো?

ফাবিহাঃ আসলে আমি কাউকেই কখনো বলি না যে আমি ব্লগার, কারণ আমাদের এলাকা কিংবা সমাজের প্রেক্ষিতে ব্যাপারটা অনেকটা অড লাগে। আপনার মত কিছু পরিচিত বড় ভাইয়া, যারা অনলাইনের নানা ব্যাপারের সাথে যুক্ত শুধু তারাই জানেন আমি যে ব্লগার।

আর আমার শুরুটা হয়েছিল ঠিক দেড় বছর আগে, ওই সময় আমি ল্যাপটপ কিনি। নাহ , আসলে কি নি, ইতালি থেকে মামা পাঠিয়েছিলেন। আর আমি আমার এক স্কুল ফ্রেন্ডের কাছ থেকে একটা মডেম ম্যানেজ করি।

মাস দুয়েক ফেসবুক চালিয়ে একটা গ্রুপে গুগল এডসেন্স নিয়ে অনেক বড় একটা পোস্ট পাই, ওইটা আমি বুকমার্ক করে রাখি। প্রায়ই ওইটা পড়তাম। ১ মাস শুধু ওইটাই পড়েছি। আমার কাছে মনে হইছে, যতবার পড়ছি কনসেপ্ট গুলো আমার কাছে ক্লিয়ার হচ্ছে।

দেন, এর মাস খানেক পরে নিজের সাইট শুরু করি।

start a blog

সফরঃ বাহ, তো তোমার ব্লগ কয়টা?

ফাবিহাঃ আমার ব্লগ একটাই, একা একা ওইটাই সামলাতে কষ্ট হচ্ছে। L

 

সফরঃ ওহ আচ্ছা, সামনে কি নতুন ব্লগ স্টার্ট করার কোন পরিকল্পনা আছে?

ফাবিহাঃ নাহ, আসলে আমি যে ব্লগটা নিয়ে কাজ করছি সেটা আমার প্যাশনের সাথে যায়। আমি সাধারণ একজন বাঙালি মেয়ে হিসেবে সাজগোজ খুবই পছন্দ করি, এবং এসব নিয়ে ঘাটাঘাটি করতে ও পছন্দ করি।

 

সফরঃ তার মানে তোমার ব্লগের নিশ হচ্ছে বিউটি কেয়ার? আমরা জেনে গেলাম।

ফাবিহাঃ বিউটি কেয়ার খুবই কমন একটা নিশ, সো আপনি কিংবা আপনারা জানলে কোন সমস্যা মনে করছি না। কারন এই নিশেই মিলিয়নস ওয়েবসাইট ইন্টারনেটে আছে।

 

সফরঃ তোমার ব্লগ সম্পর্কে বলো, কারণ আমার অডিয়েন্স তোমার ব্লগ সম্পর্কে অনেক আগ্রহী। এইজ কত ব্লগের আর কন্টেন্ট কতটা আছে?

ফাবিহাঃ ব্লগের এইজ এক বছর তিন মাসের মত, আর মোট কন্টেন্ট আছে ৮০ টার মত।

 

সফরঃ তোমার কন্টেন্ট গুলো কেমন মানে আমি জানতে চাচ্ছি কত ওয়ার্ডের এবং কণ্টেন্টে কি কি বিশেষত্ব রয়েছে?

ফাবিহাঃ আমার সব কন্টেন্ট ১২০০-২০০০ ওয়ার্ডের মধ্যে। আমি সাধারণত ১০০০ ওয়ার্ডের নিচে কোন কন্টেন্ট লিখি না।

আর বিশেষত্ব বলতে এটাই বলব, আমি অনেক রিসার্স করে কন্টেন্ট লিখি। যা সবচেয়ে বেশি দরকারি যেকোন ধরনের ব্লগের জন্য। শুরুতে আমার ইংরেজি নিয়ে আমি খুবই হতাশ ছিলাম, কিন্তু রেগুলার চর্চায় ঠিক হয়ে গেছে আলহামদুলিল্লাহ্‌।

আমার প্রতিটা কন্টেন্টে মিনিমাম ৪ টা এবং সর্বোচ্চ ১২ টা পর্যন্ত ইমেজ থাকে। চেষ্টা করি সব গুলো ভালো ভাবে অপটিমাইজ করার জন্য।

 

সফরঃ ব্লগিং এ আইকন কে তোমার আর কাকে ফলো করো সব সময়?

ফাবিহাঃ আমার স্পেসিফিক কোন আইকন নাই। আমি যখন যা ইনফো লাগে গুগল করে জেনে নেওয়ার চেষ্টা করি, স্পেসিফিক কোন ব্লগ বা কোন ব্যক্তিকে ফলো করি না।

তবে আমার কাছে মনে হয়েছে, আমি WP Beginner এবং Search Engine Journal এই দুইটা ব্লগের লেখা বেশী পড়ি এবং দুইটা ব্লগের ভাষাই অনেক প্রাঞ্জল।

 

সফরঃ আচ্ছা শুরুর দিকের কথা বলো, তুমি ব্লগ লাইভ করার পরে কত দিন লেগেছিলো র‍্যাংক করতে?

ফাবিহাঃ Ahrefs এর তথ্যমতে, আমি ১ মাসের মাথাতেই বেশ কিছু কিওয়ার্ডের জন্য র‍্যাংকড হয়ে যাই। কিন্তু প্রোপারলি ডেইলি ৫০-২০০ ভিজিটর আসতে তিন মাসের মত সময় লেগেছিলো।

 

সফরঃ ওই সময়টা কেমন ছিলো?

ফাবিহাঃ খুবই আনপ্রোডাক্টিভ এবং হতাশা জনক। আপনি জানেন, আপনাকে ফোনে কতটা জ্বালিয়েছি। 😀

 

সফরঃ আচ্ছা তুমি কতটা কন্টেন্ট নিয়ে এডসেন্স আবেদন করো? এবং এপ্রুভাল পাও কীভাবে?

ফাবিহাঃ আমার এক্সাক্টলি মনে নাই, বাট ১২ টার মত কন্টেন্ট ছিলো। আর আমি এপ্লাই করার পরেই প্রথম বারেই এপ্রুভাল পাই। আসলে ওইটা আমাকে খুবই সাহায্য করেছিলো মোটিভেটেড থাকতে।

 

সফরঃ লিংক বিল্ডিং কীভাবে করছো?

ফাবিহাঃ আমি আসলে একটা স্পেসিফিক ব্লগার সার্কেল গড়ে তুলেছি, ইউক্রেন, পাকিস্তান, আর ইন্ডিয়া মিলিয়ে প্রায় ১০ জনের মত আমরা। সবাই বিউটি ব্লগার।

এক জন আরেকজনের জন্য লিখি আর লিংক এক্সচেঞ্জ করি। আর নরমালি সোশাল শেয়ার আর ব্লগ কমেন্ট ছাড়া আর বেশী কিছু করি না।

তবে হ্যাঁ, শুরুতে আমি প্রোফাইল ব্যাকলিংক করেছি অনেক, সাথে ৩ টা ওয়েব টু।

আমি মনে করি আমার গেস্ট ব্লগিংই সবচেয়ে বেশী হেল্প করছে র‍্যাংক করতে।

 

সফরঃ এডসেন্সের পাশাপাশি কোন অ্যাফিলিয়েট করছো?

ফাবিহাঃ নাহ, অ্যাফিলিয়েট করব ভাবছি। দেখা যাক, এ ব্যাপারে স্টাডি করছি।

 

সফরঃ তোমার ব্লগের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইলো, ভালো থাকবা সুস্থ থাকবা।

ফাবিহাঃ অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনি ও ভালো থাকবেন আর আমার জন্য দোয়া করবেন।

 

 

ধন্যবাদ সবাইকে পড়ার জন্য। ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

2 thoughts on “১৯ বছর বয়সী ফাবিহার ব্লগার হওয়ার গল্প | প্রথম ইন্টারভিউ

  1. we want to know more details about her website
    how she research kw ?
    how many article on her blog
    how much revenue she generate
    how many traffic she got from her blog

    and at last million dollar request from our nation who is she ??? can we know more details about her ???
    Fb twiiter Email lol

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *